হজ্জ্ব সফরনামা

  • বাইতুল্লাহর ছায়ায়-২৭

    (পূর্ব প্রকাশিতের পর) হজ্ব থেকে ফারেগ হওয়ার পর সবার অন্তরে আশ্চর্য একটি ভালো লাগার অনুভূতি সৃষ্টি হয়। কত বড় কঠিন দায়িত্ব, আল্লাহর রহমতে কত সহজে আদায় হয়ে গেলো! শোকর ও কৃতজ্ঞতার আবেগ যেন হৃদয় উপচে পড়ে। তোমার শোকর হে আল্লাহ! তোমার শোকর!
  • বাইতুল্লাহর ছায়ায়-২৬

    (পূর্ব প্রকাশিতের পর) আছরের প্রস্ত্ততি নেয়ার জন্য হাম্মামে গেলাম এবং .. এবং একেবারে ‘আচানক’ মাওলানা হিদায়াত হোসায়নের সঙ্গে দেখা হয়ে গেলো, আর মনের মধ্যে এক অনির্বচনীয় আনন্দের অনুভূতি হলো। তিনিও খুশী হলেন; হওয়ারই কথা, দীর্ঘ ঊনিশ বছর পর দেখা!
  • বাইতুল্লাহর ছায়ায়-২৫

    (পূর্ব প্রকাশিতের পর) মসজিদে খায়ফ পার হয়ে কিছু দূর আসার পর ভাই কামরুল ইসলামের অবস্থা আবার গুরুতর হয়ে পড়লো। শরীর যে কাঁপছে দেখেই বোঝা যায়। তাড়াতাড়ি ধরে পথের পাশে বসালাম। তিনি নিস্তেজ আওয়াযে বললেন, হুযূর, এ্যাম্বুলেন্স আনেন। মিনায় আরাফায় এ্যাম্বুলেন্স নামক বস্ত্তটি যে দেখিনি তা নয়, কিন্তু কোথায় পাওয়া যায়, ...
  • বাইতুল্লাহর ছায়ায়

    (পূর্ব প্রকাশিতের পর) এবার মিনায় ফিরে যাওয়ার পালা। শিকদার সাহেবের কাছ থেকে বিদায় নিয়ে আমরা দু’জন বের হলাম। বিদায়ের সময় শিকদার সাহেব হেসে হেসে একটা কথা বলে আমাকে কাঁদালেন। মানুষের দিল যে কী জিনিস তা মানুষ নিজে কোনদিন জানতে পারবে না; দিলের হাকীকত জানেন শুধু আল্লাহ। আমাদের পেয়ারা হাবীব ছাল্লাল্লাহু ...
  • বাইতুল্লাহর ছায়ায়

    কলম যখন চলতে শুরু করে, কোত্থেকে কোথায় চলে যায়! ফিরে আসি আগের স্থানে, সুড়ঙ- পথের প্রবেশমুখে।
  • বাইতুল্লাহর ছায়ায়-২২

    মুযদালিফা থেকে মিনার জামারা, সুদীর্ঘ পথ। পথ তো নয়; ইহরামের সাদা লেবাসে হজ্বের নূর ও নূরানিয়াতে সণান করা লক্ষ মানুষের যেন নূরানি এক স্রোত! চারদিকে একই তরঙ্গধ্বনি, লাববাইক আল্লাহুম্মা লাববাইক।
  • বাইতুল্লাহর ছায়ায়-২১

    কান্নার রোল, আর অশ্রুর ঢল ধীরে ধীরে শান্ত হলো এবং হৃদয়ের গভীরে পরম আশ্বাস ও প্রশান্তি সৃষ্টিকারী মুনাজাত শেষ হলো। অশ্রুভেজা মুখগুলো তখন বড় পবিত্র মনে হলো, আর মনে হলো, আসমানে ফিরেশতাদের নূরানি চেহারা হয়ত এমনই উজ্জ্বল, এমনই উদ্ভাসিত!
  • বাইতুল্লাহর ছায়ায়-২০

    সময় থেমে থাকে না, তন্দ্রার শান্তিদায়ক এক আচ্ছন্নতার মাঝে মধ্যরাত হয়ে গেলো। হঠাৎ মনে হলো, এ তাঁবু তো মুযদালিফায়, অথচ রাত্রিযাপনের সুন্নত হলো মিনায়। তো এককাজ করি, সুন্নত আদায়ের নিয়তে মিনার সীমানায় গিয়ে কিছু সময় যাপন করি।
  • বাইতুল্লাহর ছায়ায়-১৯

    হারামের ইমাম শায়খ শোরায়ম ফজর পড়ালেন। তাঁর মিষ্টি মোলায়েম তিলাওয়াত খুব ভালো লাগে। আল্লাহর কালামের শব্দগুলো তাঁর মুখ থেকে যেন বৃষ্টির বড় বড় ফোঁটার মত বর্ষিত হতে থাকে। সেই ফোঁটা ফোঁটা আসমানি বৃষ্টিতে সবাই যেন ভিজতে থাকে। কীভাবে বোঝাবো ‘শোরায়মি তিলাওয়াত’ -এর জান্নাতি জামাল! তারাবির জামাতে তাঁর তিলাওয়াত যখন শুনি, ...
  • বাইতুল্লাহর ছায়ায়-১৮

    আল্লাহর শোকর, আল্লাহ তাঁর গোনাহগার বান্দাকে বা-সালামাত পৌঁছে দিয়েছেন হারামের কাছে, একেবারে কাছে। কয়েক কদম এগুলেই দেখা যাবে হারামের চত্বর এবং দেয়ালের অংশ। বুকটা কেমন যে দুরু দুরু করছে! কেমন বেদনা এ! কেমন যন্ত্রণা এ!! কষ্ট আছে এবং আছে আনন্দ!!

কুরআন মজীদ ও সহীহ হাদীসের আলোকে মাহে রমযান