সফর ১৪৩৮ . নভেম্বর ২০১৬

পুরোনো সংখ্যা . বর্ষ: ১২ . সংখ্যা: ১০

সকল পরামর্শ »

শিক্ষা পরামর্শ

  • . তারেক আজিজ . নোয়াখালী
    সমস্যা:

    মুহতারাম, আসসালামু আলাইকুম। আশা করি আল্লাহর রহমতে ভাল আছেন। মুহতারামের কাছে আমার দুটি প্রশ্ন :

    ১. মহাগ্রন্থ আলকুরআনের এমন একটি বাংলা তাফসীর গ্রন্থের নাম জানতে চাই, যাতে আয়াত বা অংশভিত্তিক বিষয়ের শানে নুযুল এবং নাযিলের সময় থাকবে।

    ২. হযরত ইবরাহীম আলাইহিস সালাম সম্পর্কে তথ্যনির্ভর বাংলায় কোনো কিতাব আছে কি না? থাকলে নাম জানতে চাই।


    পরামর্শ:

    (ক) হযরত মুফতী শফী রাহ.-এর মাআরিফুল কুরআনঅনুবাদ : মাওলানা মুহিউদ্দীন খান (আট খণ্ডে)। তাফসীরের এই কিতাব থেকে আপনি সংশ্লিষ্ট আয়াতের শানেনুযুল সম্পর্কে জানতে পারবেন।

    (খ) কাসাসুল কুরআনমাওলানা হিফজুর রহমান সিউহারবীঅনুবাদ : এমদাদিয়া লাইব্রেরী। এ কিতাবটিতে কুরআনে কারীমে বর্ণিত আম্বিয়ায়ে কেরামের জীবনী ও ঘটনাবলী সম্পর্কে তথ্যপূর্ণ আলোচনা ও বিশ্লেষণ রয়েছে। 

  • ১. . মুহাম্মাদ সানাউল্লাহ . দশম শ্রেণি, আজিমুদ্দীন উচ্চ বিদ্যালয় কিশোরগঞ্জ
    সমস্যা:

    আমি কিশোরগঞ্জ আজিমুদ্দীন উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্র। আমার বড় ভাই রহমাতুল্লাহ মারকাযুদ দাওয়াহ ঢাকা-এর ছাত্র হওয়ার সুবাদে মারকাযুদ দাওয়াহ ঢাকা এবং তা থেকে প্রকাশিত পত্রিকা মাসিক আলকাউসারের সাথে আমার পরিচয়। সেখানে শিক্ষা পরামর্শ নামে একটি বিভাগ দেখে খুব প্রফুল্ল হয়েছি। এখন আমার জানার বিষয় হলো, কারবালার ইতিহাস সম্পর্কে লোকমুখে অনেক ধরনের গল্প শুনি। একেকজন একেক রকম গল্প বলে। সঠিক ইতিহাস সম্বলিত বাংলায় লিখিত কয়েকটি গ্রন্থের নাম বললে উপকৃত হব। আল্লাহ তাআলা আপনাকে উত্তম বিনিময় দান করুন। আমীন


    পরামর্শ:

    বাংলা ভাষায় কারবালার ইতিহাস সম্পর্কে তথ্যপূর্ণ বিশ্লেষণমূলক এবং নির্ভরযোগ্য কোনো বই রচিত হয়েছে কি না তা আমার জানা নেই। এ বিষয়ে সংক্ষেপে জানার জন্য মুফতী শফী রাহ. রচিত শহীদে কারবালা’ পড়তে পারেন। এর বাংলা অনুবাদ হয়েছে কি না- খোঁজ করতে পারেন।

  • ৩. . আবদুর রহীম . মীরপুর, ঢাকা
    সমস্যা:

     

    মোল্লা আলী ক্বারী রাহ. শরহে নুখবার শরাহ- شرح الشرح    -حافظ , حجة   حاكم -এর সংজ্ঞা এভাবে দিয়েছেন-

    إن الحافظ : هو من أحاط علمه بمئة ألف حديث، ثم بعده الحجة وهو من أحاط علمه بثلاث مئة ألف حديث، ثم الحاكم وهو الذي أحاط علمه بجميع الأحاديث المروية متنا وإسنادا، جرحا وتعديلا وتاريخا. كذا قالت جماعة من المحققين.

    কিন্তু সদ্য প্রকাশিত উলূমুল হাদীসের  একটি বই হাতে পেলাম। যা তাকমীল মারহালার উলূমুল হাদীস বিষয়ক পরীক্ষার জন্য বেফাক বোর্ডের সকল প্রশ্নের সহজ বাংলা উত্তর সম্বলিত।

    উক্ত বইয়ের ৪৩ পৃষ্ঠায় حافظ এর পূর্বোল্লিখিত সংজ্ঞাটি লিখে বি. দ্র.-এ বলা হয়েছে-

    মুহাক্কিক উলামাদের মতে এ অর্থটি সঠিক নয়। এবং ৪৪ পৃষ্ঠায় حجة -এর সংজ্ঞা লিখে একই মন্তব্য করা হয়েছে। এবং حاكم -এর সংজ্ঞা লিখে বলা হয়েছে, উক্ত অর্থটি সম্পূর্ণ অবাস্তব ও ভুল। আসলেই কি এ সংজ্ঞাগুলোতে তাসামুহ হয়েছে ? আশা করি বিস্তারিত জানিয়ে আমাদের সংশয় দূর করবেন।

     

    পরামর্শ:

     

    পরিভাষাগুলোর সংজ্ঞা বর্ণনায় মোল্লা আলী কারী (রাহ.)-এর তাসামুহ হয়ে গেছে। আর তিনি যে এই সংজ্ঞাগুলোর নিসবত একদল মুহাক্কিক আলিমের দিকে করেছেনমুহাক্কিক আলিমগণ এর কোনো বাস্তবতা খুঁজে পাননি। এ বিষয়ে শায়েখ আবদুল্লাহ বিন সিদ্দীক আলগুমারী রাহ. তাঁর কিতাব  توجيه العناية إلى تقسيم علم الحديث إلى رواية ودراية   -এ এবং শায়েখ আবদুল ফাত্তাহ আবু গুদ্দাহ রাহ. তাঁর রিসালা أمراء المؤمنين في الحديث -এ তাম্বীহ করেছেন।

    বস্তুতঃ الحافظ শব্দটি বিজ্ঞ ও প্রাজ্ঞ মুহাদ্দিসদের উপাধি। হাফেজ ইবনে হাজার রাহ. নুযহাতুল আলবাব ফীল আলক্বাব’ গ্রন্থে (১/১৮৮) বলেছেন,لقب من مهر في معرفة الحديث  তিনি এ উপাধিটির আরো  বিস্তারিত ব্যাখ্যা ও পরিচয় পেশ করেছেন তাঁর প্রসিদ্ধ কিতাব النكت على مقدمة ابن الصلاح -এর الفائدة الثانية من النوع الأول  -এ-

    للحافظ في عرف المحدثين شروط، إذا اجتمعت في الراوي سموه حافظا، وهو الشهرة بالطلب والأخذ من أفواه الرجال لا من الصحف، والمعرفة بطبقات الرواة ومراتبهم، والمعرفة بالتجريح والتعديل، وتمييز الصحيح من السقيم، حتى يكون ما استحضره أكثر مما لا يستحضره مع استحضار الكثير من المتون.

    الحجة শব্দটি রাবীকে تعديل وتوثيق করার ক্ষেত্রে একটি বহুল ব্যবহৃত শব্দ। এর অর্থ হলোযিনি হাদীস বর্ণণার ক্ষেত্রে হুজ্জত বা যার বর্ণনা দ্বারা দলীল পেশ করা যায়। এ ছাড়া এটি আইম্মায়ে হাদীসের লক্বব বা উপাধি হিসেবেও ব্যবহার হয়ে থাকে। সে ক্ষেত্রে  অর্থ হবে র্জাহ-তাদীল,তাসহীহ-তাজয়ীফ-এর ক্ষেত্রে যিনি প্রামাণ্য ব্যক্তিত্ব। আর الحاكم শব্দটি তো মুহাদ্দিসীনে কেরামের উপাধিই নয়বরং এটি কাযী বা বিচারকদের একটি উপাধিহাদীস মুখস্থ বা বর্ণনার সাথে এর কোনো সম্পর্ক নেই। 

     


সম্মানিত পাঠক!
মাসিক আলকাউসারের ওয়েব পেজটির উন্নয়ন কাজ চলছে। তাই বর্তমান সংখ্যাটি হালনাগাদ করতে বিলম্ব হচ্ছে। আপনাদের সাময়িক অসুবিধার জন্য আমরা আন্তরিকভাবে দুঃখিত।

হজ্ব এবং কুরবানী বিষয়ক প্রবন্ধসমূহ